জনসনের টিকার অনুমোদন দিল বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা

জনসনের টিকার অনুমোদন দিল বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা

আন্তর্জাতিক

করোনাভাইরাস থেকে সুরক্ষা দিতে মার্কিন প্রতিষ্ঠান জনসন অ্যান্ড জনসনের উদ্ভাবিত টিকার এক ডোজ ব্যবহারের অনুমোদন দিয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও)। ১২ মার্চ, শুক্রবার ডব্লিউএইচও এ অনুমোদন দেয় বলে জানিয়েছে মার্কিন গণমাধ্যম নিউইয়র্ক টাইমস।

ফাইজার বা মডার্নার মতো ফ্রিজারে খুব কম তাপমাত্রায় রাখার দরকার হয় না জনসন অ্যান্ড জনসনের উদ্ভাবিত টিকা, সাধারণ ফ্রিজে রাখলেই হয়। জনসনের এক ডোজের এই টিকা বেশ নিরাপদ ও কার্যকর।ইতিমধ্যে যুক্তরাষ্ট্র, ইউরোপীয় ইউনিয়ন, কানাডা ও বাহরাইন জনসনের এক ডোজের টিকা অনুমোদন দিয়েছে। দক্ষিণ আফ্রিকা এই টিকার পর্যালোচনা করছে।

এ বিষয়ে ডব্লিউএইচওর প্রধান টেড্রোস আধানোম গেব্রেয়াসুস বলেন, যেহেতু নতুন একটি ভ্যাকসিন এসেছে, সেহেতু এটিকে অবশ্যই বৈশ্বিক সমাধানের অংশ আমাদের ব্যবহার করতে হবে। কোনো দেশ বা মানুষকে বাদ দেওয়া চলবে না। আমরা আশা করি নতুন এই ভ্যাকসিনটি অসমতা দূরীকরণে সহায়তা করবে।

বিশ্ব জুড়ে ৪৪ হাজার মানুষের ওপর চালানো পরীক্ষায় দেখা গেছে জনসন অ্যান্ড জনসনের এক ডোজের টিকাটি কোভিড-১৯ এ মারাত্মক অসুস্থতা থেকে রক্ষায় ৬৬ শতাংশ কার্যকর। এছাড়া দক্ষিণ আফ্রিকার নতুন ভ্যারিয়েন্টের বিরুদ্ধেও টিকাটি ৬৪ শতাংশ কার্যকর প্রমাণিত হয়েছে।

ট্রায়ালে দেখা গেছে এ টিকাটি গুরুতর অসুস্থতা প্রতিরোধ করতে পারে। তারপরও সামগ্রিকভাবে টিকাটির কার্যকারিতা ৬৬ শতাংশ।

বেলজিয়ামের কোম্পানি জনসনের টিকা তৈরি করেছে। কোম্পানিটি জুনের মধ্যে যুক্তরাষ্ট্রকে ১০ কোটি ডোজ টিকা দিতে সম্মত হয়েছে।

যুক্তরাজ্য, ইউরোপীয় ইউনিয়ন (ইইউ) ও কানাডাও জেঅ্যান্ডেজের টিকার জন্য ক্রয়াদেশ দিয়েছে, আর কোভ্যাক্স কর্মসূচির মাধ্যমে দরিদ্র দেশগুলোতে পাঠানোর জন্য আরও ৫০ কোটি ডোজের জন্যও ক্রয়াদেশ দেওয়া হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *